এখন সময় :
,

মিরসরাইয়ে বসতঘরে হামলা ও ভাংচুর, হত্যার হুমকি


মিরসরাই প্রতিনিধি>>
মিরসরাই উপজেলায় একটি বসতঘরে হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এসময় ওই বসতঘরের মালিক নুর নাহারকে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়। উপজেলার ১ নম্বর করেরহাট ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব অলিনগর কালাঘোনা এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। তবে চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে বসতঘরে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটলেও সর্বশেষ ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার বিচার না পেয়ে আতঙ্কে ভুগছেন উল্টো হত্যার হুমকির কারণে। এই ঘটনায় বসতঘরের মালিক নুর নাহার জোরারগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ (নম্বর-৯৯৭) দায়ের করেন।
থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার দারোগারহাট ছয়গরিয়া এলাকার বাসিন্দা মুছা মিয়ার কাছ থেকে বাৎসরিক সুদে ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ঋণ নেন নুর নাহার। ইতিমধ্যে ১ লক্ষ টাকা পরিশোধও করেন। বাকি টাকা ৩ মাসের মধ্যে পরিশোধের সিদ্ধান্ত হয় একটি বৈঠকের মাধ্যমে। পরবর্তীতে চলতি বছরের আগষ্টে করেরহাটের পশ্চিম অলিনগর নিজতালুক গ্রামের মৃত ছেরাজুল হকের পুত্র শহিদুল ইসলাম, পূর্ব অলিনগর কালাঘোনা গ্রামের জুলফিকারের পুত্র নুর নবী ও আবছার, নুরুল আবছারের পুত্র রহিম, ছাগলনাইয়া উপজেলার ছয়গরিয়া গ্রামের মায়া আক্তার, পশ্চিম অলিনগর গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজের পুত্র গণি আহম্মদসহ অজ্ঞাত আরো ৪-৫ জন জোরপূর্বক অলিখিত স্টাম্পে স্বাক্ষর নেন নুর নাহারের। ঋণ পরিশোধের নির্ধারিত সময়ের ২ মাস পূর্বে গত ৯ সেপ্টেম্বর সকালে নুর নাহারের পরিবারের সদস্যদের অনুপস্থিতিতে সন্ত্রাসীরা রান্নাঘর, বসতঘর, টয়লেট, গোয়ালঘর এবং বসতঘরে থাকা আসবাবপত্র ভেঙ্গে তছনছ করে দেয়। বসতঘরে হামলা ও ভাংচুরের সময় বাধা প্রদান করলে নুর নাহারকে শারিরিকভাবে লাঞ্চিত করে। এছাড়া সন্ত্রাসীরা আলমিরাতে থাকা নগদ ৫০ হাজার টাকা, ৮ আনা ওজনের স্বর্ণের চেইনও নিয়ে যায়।
ক্ষতিগ্রস্থ নুর নাহার বলেন, সন্ত্রাসীরা আমার রান্নাঘর, বসতঘর, টয়লেট, গোয়ালঘরও আসবাবপত্র ভেঙ্গে তছনছ করে দেয়। ভাংচুরের পরবর্তীতে আমাকে এবং আমার পরিবারের কেউ বাড়িতে অবস্থান নেওয়ার চেষ্টা করলে সকলকে হত্যা এবং লাশ গুম করার হুমকি দেয় সন্ত্রাসীরা। প্রাণভয়ে আমি এবং আমার পরিবারের সদস্যরা এক আতœীয়ের বাড়িতে ১০ দিন যাবত অবস্থান করি। বসতঘরে হামলাও ভাংচুরে প্রায় ৩ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি করে সন্ত্রাসীরা। আমি বর্তমানে চরম মানবেতর জীবনযাপন করছি, প্রশাসনের নিকট আমি বিচার প্রার্থনা করছি।
এদিকে ঘটনার পরদিন জোরারগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আলমগীর হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

নোটিশ :   FeniVision24.com প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মদ তমিজ উদ্দিন, সম্পাদক: জহিরুল হক মিলু
ইমেইল : fenivision@gmail.com, মোবাইল: 01823644138, 01841710509
ঠিকানা: ৪৩১ সোনালী ভবন(২য় তলা) ট্রাংক রোড়, ফেনী